খেলাধুলা

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে আবারো সেই নতুন বলের জু'জু ।

নিউজিল্যান্ডে কেন সফল হতে পারে না বাংলাদেশী ব্যাটসম্যানরা ? বিশেষ করে যখন নতুন বলের কথা সামনে আসে , আর এই ভয় কাটানোর উপায় বা কি ?

এবারের সিরিজকে সামনে রেখে নতুন বল মোকাবেলা‌ করার জন্য কিভাবে প্রস্তুতি গ্রহণ করছেন তামিম , মাহমুদুল্লাহ'রা ?

নতুন বলের সুবিধা যদি গ্রহণ করতে পারেন তাহলে প্রতিপক্ষ দলের ড্রেসিংরুমে এক ভীতিকর কাপন ছড়াতে পারবে কি বাংলাদেশ দল ?

উক্ত বিষয়ে এনামুল-হক-বিজয় বলেন :- নিউজিল্যান্ডের মাটিতে বাতাসের বিষয়টা বরাবরই সামনে চলে আসে যেটি বল মোকাবেলা করা টাকে অনেক টাফ করে দেয় । বাতাসের কারণে বলটা অনেক সময় সুইং করে অথবা কাঁপতে কাঁপতে সামনের দিকে আসে , যেমনটি এশিয়া মহাদেশের হয় না । নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশন অনুযায়ী প্রত্যেক ব্যাটসম্যানকে তার লিমিটেশন অনুযায়ী সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে ।

টেস্ট , ওডিআই‌ , টি২০ কোন ফরমেটেই নিউজিল্যান্ডের মাটিতে নিউজিল্যান্ডকে হারানোর সুখস্মৃতি নেই বাংলাদেশের , নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ব্যাটিংয়ে নেমে সব সময় ওপেনিং জুটি কে খাবি খেতে হয়েছে ।

শুধুমাত্র উল্লেখ করার মতো ২০১০ সালে তামিম ইমরুলের ৭৯ রানের জুটি , এবং ২০১৬ সালে ওই তামিম ইমরুলের জুটিই শত রান ছাড়াই । এছাড়া কিউইদের বিপক্ষে টপ অর্ডার আলো ছড়াতে সর্বদায় ব্যর্থ হয়েছে ।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পেস এ্যাটাকে আছেন মুস্তাফিজুর রহমান , তাসকিন আহমেদ , রুবেল হোসেন , সাইফুদ্দিন , হাছান মাহমুদ , শরীফুলরা এখন প্রশ্ন উঠছে তারা কি নতুন বলেন ফায়দা গ্রহণ করতে পারবেন ?

নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনটা যেহেতু স্পিনারদের জন্য একটু টাফ হবে এক্ষেত্রে‌ ফাস্ট বোলারদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে যেন ডটবল এর সংখ্যা বৃদ্ধি পায় , যাতে স্পিনাররা এসে সেই জায়গাটা কভার করতে পারে ।

ট্যাগ

আরও পড়তে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *