খেলাধুলা

এ যেন এক জাদুকর অলরাউন্ডার কে খুঁজে পেল বাংলাদেশ!

জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে মিরাজের ঘূর্ণিজাদুতে দিশেহারা ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে জিততে হলে জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামের সর্বোচ্চ রান তাড়া করতে হবে। তাদের জয়ের জন্য প্রয়োজন ১০ উইকেটে ৩৯৫ রান।

জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে সর্বোচ্চ রানের তাড়া করার রেকর্ডটি নিউজিল্যান্ডের। ২০০৮ সালে বাংলাদেশের ছুড়ে দেওয়া ৩১৭ রানের লক্ষ্য তাড়া করে ৩ উইকেটে জয় পায় নিউজিল্যান্ড।

তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে করতে হবে ৩৯৫ রান।সেই লক্ষ্যে মাঠে নামলেও শুরুর দিকে অনেক ভালো করেছিল তবে চা-বিরতির পর এসে মিরাজের দুর্ধর্ষ বোলিং পারফরম্যান্সে আউট হয়ে যায় তিন ব্যাটসম্যান।

এক মেহেদী হাসানের পারফরম্যান্সে ধরাশায়ী ক্যারিবিয়ানরা। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ১৬ ওভারে ৩৯ করেছিল দুই ওপেনার। ব্রেথওয়েট ২০ ও ক্যাম্পবেল ২৩ রানে সাবলীল ভঙ্গিতে ব্যাট চালিয়েছেন। কিন্তু তারা বেশিক্ষণ সাবলীল থাকতে পারলো না মিরাজের জন্য। দুজনকে আউট করে সাজঘরে ফেরান মিরাজ।

জোড়া আঘাত করেও মন ভরেনি মিরাজের, দুই ওভার পর তৃতীয় বারের মতো আঘাত হানে মিরাজ।

তৃতীয় বারের আঘাতে উড়ে গেলেন শেন মোজলি,২৪ বলে ১২ রানের ইনিংস খেলেন মোজলি। দ্রুত ৩ উইকেট হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

বাংলাদেশকে বিশাল লিড এনে দেওয়ার পেছনে দুর্দান্ত সেঞ্চুরি করেন মুমিনুল হক। এ সেঞ্চুরি তাকে নিয়ে গেল অনন্য উচ্চতায়। তামিমকে ছাড়িয়ে টেস্টে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির অধিকারী হলেন মুমিনুল হক।

দ্বিতীয় ইনিংসে ৩ উইকেটে ১১০ রান করে ক্যারিবিয়ানরা। তাদের জয়ের জন্য দরকার ৯০ ওভারে ২৮৫ রান হাতে আছে ৭ উইকেট।

দ্বিতীয় ইনিংসে ৩ উইকেটের ৩টি নিয়েছে মেহেদী হাসান মিরাজ। তার জাদুকরী বোলিংয়ে দিশেহারা ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

আরও পড়তে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *