আন্তর্জাতিক

মিয়ানমারকে নিষেধাজ্ঞার পরেও যুক্তরাষ্ট্রকে পাত্তা দিল না মিয়ানমারের সেনারা ।

মিয়ানমারে অভ্যুত্থানের ঘটনায় ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট সহ তিন ব্যক্তি ও দশটি প্রতিষ্ঠানকে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র । যার প্রেক্ষিতে মার্কিনদের শত কোটি ডলারের তহবিলে কোন অধিকার থাকবে না জানতা সরকারের ।

মিয়ানমারে ইউনিয়ন ডে উপলক্ষে ২৩ হাজার কারা বন্দীকে মুক্তি দেওয়া হলেও রাতভর চলমান ছিল ধর পাকড়াও সাঁড়াশি অভিযান । এদিকে মিয়ানমারের সাধারণ জনগণের গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার আন্দোলন গড়িয়েছে এক সপ্তাহের অধিক ।

মিয়ানমারে ৭৪ তম ইউনিয়ন ডে উপলক্ষে ২৩ হাজার ৩০০ বন্দিকে মুক্তি দিয়েছে দেশটির বর্তমান সরকার , মুক্তি দেওয়া হয়েছে মিয়ানমারসহ বিদেশি ৫৫ নাগরিক কে , জান্তা সরকারের ভাষণে যারা চাকরি থেকে নিজেদেরকে বিচ্যুতি রেখেছে তাদের পুনরায় কাজে ফেরার জন্য তাগিদ দিয়েছে ।

ভাষণে বলা হয় :- অসাধু কিছু দেশবিরোধী ব্যক্তির জন্যই মিয়ানমার আজ অস্থির , যারা দায়িত্ব থেকে নিজে থেকে বিরত রেখেছেন তাদের কে অনুরোধ করব তারা পুনরায় কাজে ফিরে আসুন । আন্দোলনের সাথে যুক্ত না হয় হাসপাতালে ফিরতে অনুরোধ করছি স্বাস্থ্যকর্মীদের ।

তবে সেনা সরকারের আহবানকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে মিয়ানমারের জনগণ উত্তাল করে তুলেছে পুরো রাজপথ , মিয়ানমারে যে সকল ভিন্ন ভিন্ন নৃ-গোষ্ঠী গুলো রয়েছে তারা নতুন করে আন্দোলনে যুক্ত হয় ভিন্ন ভাবমূর্তি ধারণ করেছে আন্দোলন ।

জান্তা সরকারের প্রতি নিজেদের সমর্থন দেওয়ায় চীনের প্রতি ক্ষুব্ধ হয়ে আছে মিয়ানমারের সাধারণ জনগণ , এদিকে নিজেদের ক্ষমতা পুনরুদ্ধারের দাবিতে তারা মিয়ানমারের দূতাবাসের সামনে নিয়মিত সমাবেশ অব্যাহত রেখেছে ,

প্রতিবেশী দেশ মিয়ানমারের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবি জানিয়েছে জাপান বাশী , এবং এরই পরে মিয়ানমারের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও ১০ টি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে এই নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা । এসকল সে দেখার পরেও মিয়ানমার সেনারা তাদের সারি সারি অভিযান অব্যাহত রেখেছে ।

ট্যাগ

আরও পড়তে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *