স্বাস্থ্য

গ্যাস্ট্রিক কেন হয় , এর থেকে পরিত্রাণের উপায় কী ?

গ্যাস্ট্রিক কী :- গ্যাস্ট্রিক সাধারণত শরীরের ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণে হয়ে থাকে , আর এ ব্যাকটেরিয়ার নাম হল Helicobacter pylori . এছাড়াও আরও বিভিন্ন ধরনের কারণ রয়েছে যার কারণে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় ভুগতে হতে পারে ।

আপনি কিছুক্ষণ আগে ফাস্টফুড খেয়েছেন যার জন্য আপনার পেটে জ্বালাপোড়া হচ্ছে , এটি গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা সাধারণত আমরা এটিকে এভাবে অবহিত করে থাকি । আর চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় এটিকে বলা হয় গ্যাসট্রাইটিস ।

সাধারণত একজন মানুষের গ্যাস্ট্রিক তখনই হয় যখন বিভিন্ন কারণে তার পেটে বিদ্যমান আস্তরন ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে থাকে , বর্তমান সময়ে গ্যাস্ট্রিক একটি খুবই সাধারণ রোগ , অনেকের ক্ষেত্রে এটি খুব বেশি মারাত্মক আকার ধারণ করে না এবং সঠিক চিকিৎসার ফলে এটি খুব দ্রুত নিরাময় হয়ে যায় ।

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যার সম্মুখীন হওয়ার কয়েকটি কারণ হলো :

  1. অতিরিক্ত অ্যালকোহল এর ব্যবহার ।
  2. দীর্ঘদিন ধরে ব্যথানাশক ওষুধ ব্যবহারের ফলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা হতে পারে ।
  3. দীর্ঘদিন ধরে সার্জিক্যাল ইন্সট্রুমেন্ট ব্যবহার বা অসুস্থ থাকা ।
  4. অনেক সময় দেখা যায় আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভুলবশত আমাদের শরীরের কোষ কে আক্রমণ করে থাকে ।

কিভাবে উপলব্ধি করবেন আপনার গ্যাসট্রাইটিস হয়েছে বা গ্যাস্ট্রিক লক্ষণ কি কি ?

  • বদ হজম হওয়া ।
  • পেটে ব্যথা করা ।
  • খাবার খাওয়ার পর অসুস্থতা অনুভব করা ।

গ্যাস্ট্রিক থেকে পরিত্রান পাবার উপায় কী?

১ . আপনি যদি অনুভব করেন যে আপনার নিয়মিত ব্যথানাশক ওষুধ সেবনের ফলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় জর্জরিত হচ্ছেন , তাহলে আপনার ব্যবহৃত ব্যথানাশক ওষুধ টি অবিলম্বে পরিবর্তন করতে হবে , তবে তা চিকিৎসকের পরামর্শ সহিত করলে উত্তম হবে ।

২ . আপনি যদি গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় ভোগেন তাহলে আপনার নিয়মিত খাদ্যাভ্যাসে কিছু আমূল পরিবর্তন আনতে হবে । (I) একই সঙ্গে অধিক খাবার গ্রহণ না করে একাধিকবার অল্প অল্প করে খাবার গ্রহণ করুন ।(II) যে সকল খাবার গ্রহণ করলে আপনার পেটে যন্ত্রণা অনুভব করে সে সকল খাবার পরিহার করুন ।(III) ফাস্টফুড বা বেশি মসলাযুক্ত খাবার যথাসম্ভব এড়িয়ে চলুন । (IV) আপনি যদি অ্যালকোহলে আসক্ত হয়ে থাকেন তাহলে তার মাত্রা কমিয়ে দিতে হবে ভালো হবে যদি সম্পূর্ণভাবে ছেড়ে দিতে পারেন ।

৩ . ভরপেট খাবার গ্রহণ থেকে বিরত থাকুন ,যদি নিজের ভিতরে কোন মানসিক চাপ থাকে তাহলে যত সম্ভব তা থেকে বেরিয়ে আসুন ।

ট্যাগ

আরও পড়তে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *